বৃহস্পতিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০১:৪৪ পূর্বাহ্ন

আরও ১৮ জেলা পেল করোনা ভ্যাকসিন

অনলাইন ডেক্স :
  • প্রকাশিত সময় : রবিবার, ৩১ জানুয়ারী, ২০২১
  • ১৭ পাঠক পড়েছে

দেশের আরও ১৮ জেলা পেল করোনা ভ্যাকসিন। শনিবার এসব জেলায় গাজীপুর বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালের সংরক্ষণাগার থেকে ভ্যাকসিনগুলো ১৮ জেলায় পৌঁছে দেয়া হয়েছে। সারাদেশে ভ্যাকসিন প্রয়োগের আগেই ভ্যাকসিনগুলো পৌঁছে দেয়া হচ্ছে।

শনিবার যে ১৮ জেলায় ভ্যাকসিন নিয়ে ফ্রিজার ভ্যানগুলো রওনা হয়েছে সেগুলো হচ্ছে গাইবান্ধা, রংপুর, লালমনিরহাট, কুড়িগ্রাম, দিনাজপুর, নিলফামারী, ঠাকুরগাঁও, পঞ্চগড়, বান্দরবান, কক্সবাজার, চট্টগ্রাম, রাঙ্গামাটি, খাগড়াছড়ি, যশোর, সাতক্ষীরা, খুলনা, বাগেরহাট এবং পিরোজপুর। যেকোন সময়ে ভ্যাকসিনগুলো সংশ্লিষ্টদের হাতে হস্তান্তর করা হবে। পুলিশ প্রহরায় পাঠানো ভ্যাকসিনগুলো স্থানীয় প্রশাসনের হাতে হস্তান্তর করবে বেক্সিমকোর কর্মকর্তারা।

স্বাস্থ্য অধিদফতর সূত্র বলছে ভ্যাকসিন পাঠানোর সঙ্গে সঙ্গে এগুলো প্রয়োগে প্রশিক্ষণ দেয়ার কাজ শুরু হয়েছে। জেলা সম্প্রসারিত টিকাদান কর্মসূচীর (ইপিআই) কর্মকর্তারা বলছেন প্রতি উজেলায় যারা আগে থেকে ভ্যাকসিন প্রয়োগ করত তাদের মধ্যে থেকেই নির্দিষ্টসংখ্যক কর্মীকে প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে। যেহেতু এরা আগেই ভ্যাকসিন প্রয়োগ করত তাই তাদের কাছে বিষয়টি নতুন নয়।

অক্সফোর্ড এ্যাস্ট্রাজেনেকার ভ্যাকসিন সংরক্ষণের জন্য ২ থেকে আট ডিগ্রী সেন্টিগ্রেড তাপমাত্রার প্রয়োজন হওয়াতে সাধারণ ফ্রিজারেই এগুলো সংরক্ষণ করা যায়। দেশে অনেক আগে থেকে ইপিআইর মাধ্যমে ভ্যাকসিন দেয়া হচ্ছে। যাদের কাছে এ ধরনের ভ্যাকসিন সংরক্ষণের ব্যবস্থা রয়েছে।

তবে করোনা ভ্যাকসিনটি একেবারে নতুন হওয়াতে সারাদেশে যেসব টিকাদান কেন্দ্র রয়েছে সেখানে প্রশিক্ষিত কর্মীরাই কেবল ভ্যাকিসন প্রয়োগ করবেন। ভ্যাকসিন গ্রহণের ৩০ মিনিট আগেই সেখানে গ্রহীতাকে আসতে হবে। প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্য জিজ্ঞাসা শেষে তিনি ভ্যাকসিন গ্রহণ করবেন। ভ্যাকসিন গ্রহণের পর অন্তত ৩০ মিনিট সেখানে অবস্থান করবেন। এই সময়ের মধ্যে কোন পাশর্^প্রতিক্রিয়া দেখা দিলে তাকে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হবে। আর যদি এরপরও কোন পাশর্^প্রতিক্রিয়া দেখা যায় তার চিকিৎসাও সরকারের তরফ থেকে দেয়ার প্রতিশ্রুতি দেয়া হয়েছে।

ইতোমধ্যে ৫৬৬ জন ভ্যাকসিন গ্রহণ করেছেন। যাদের কারো মধ্যেই এখনও পর্যন্ত কোন পাশর্^প্রতিক্রিয়া দেখা যাওয়ার খবর পাওয়া যায়নি। ভ্যাকসিন গ্রহণ করেছেন তাদের মধ্যে বিশিষ্ট চিকিৎসকরা নির্ভয়ে এই ভ্যাকসিন নেয়ার পারামর্শ দিয়েছেন। পাশর্^প্রতিক্রিয়া সৃষ্টির গুজবে কান না দিয়ে মহামারী প্রতিরোধে সরকারী উদ্যোগ বাস্তবায়নে জনসাধারণকে সহায়তা করার আহ্বানও জানানো হয়েছে। এখন পর্যন্ত সারা বিশে^ করোনা প্রতিরোধে ভ্যাকসিনের কোন বিকল্প আবিষ্কার হয়নি। নিকট ভবিষ্যতেও আবিষ্কার হওয়ার কোন সম্ভাবনা নেই। সঙ্গত কারণে করোনা থেকে বাঁচতে ভ্যাকসিনের কোন বিকল্প নেই।

আমাদের স্টাফ রিপোর্টার, কক্সবাজার থেকে জানান, কক্সবাজারে ৮৪ হাজার ডোজ করোনাভাইরাসের টিকা আসছে। কক্সবাজার সিভিল সার্জন অফিসের জেলা ইপিআই সুপার সাইফুল হক জানান, ৮৪ হাজার ডোজ করোনা ভাইরাসের টিকাতে ৮ হাজার ৪০০ ভায়ালটি রয়েছে। প্রতিটি কার্টনে এক হাজার ২০০ ভায়াল টিকা থাকবে। প্রতিটি ভায়ালে টিকা রয়েছে ১০ ডোজ। সে হিসাবে কক্সবাজারে ৪২ হাজার নাগরিককে করোনাভাইরাসের এই টিকা দেয়া সম্ভব হবে। তিনি অরও জানান, আজ ৩১ জানুয়ারি ও ১ ফেব্রুয়ারি উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তাসহ প্রতি উপজেলা থেকে ৫ জনকে করোনাভাইরাসের টিকা প্রয়োগ সম্পর্কে প্রশিক্ষণ দেয়া হবে। এরপর প্রশিক্ষণপ্রাপ্তরা ২ ও ৩ ফেব্রুয়ারি জেলার টেকনেশিয়ান, নার্স, উপসহকারী কমিউনিটি মেডিক্যাল অফিসার, পরিবার পরিকল্পনা ভিজিটরসহ সংশ্লিষ্টদের দুদফায় প্রশিক্ষণ দেয়া হবে।

নিজস্ব সংবাদদাতা, পটুয়াখালী থেকে জানান, পটুয়াখালী জেলার মানুষের জন্য করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন এসে পৌঁছেছে। প্রথম ধাপে আসা ভ্যাকসিন প্রয়োগে ১৭ ক্যাটাগরিতে একটি তালিকা তৈরি করেছে প্রশাসন। শুক্রবার রাতে এসব ভ্যাকসিন পটুয়াখালী সিভিল সার্জন অফিসে এসে পৌঁছায়। পটুয়াখালীর সিভিল সার্জন ডাঃ জাহাঙ্গীর আলম জানান, প্রথম ধাপে ৪৮০০ হাজার ভায়াল পাওয়া গেছে। এতে মোট ৪৮০০০ হাজার মানুষের মাঝে বিতরণ করা যাবে। পটুয়াখালী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল এবং প্রত্যেক উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এ এই ভ্যাকসিন দেয়া হবে। প্রতিটি টিকাদান কেন্দ্রে মোট ৬ জন দায়িত্ব পালন করবেন। এর মধ্যে দুই জন টিকাদানকারী এবং চারজন স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন। একটি টিকাদান টিম দৈনিক গড়ে ১০০ থেকে ১৫০ জনকে টিকা দিতে পারবে। এদিকে ভ্যাকসিন সংরক্ষণের জন্য ইতোমধ্যে পর্যাপ্ত আইএলআর (আইস লাইন রেফ্রিজারেটর) প্রস্তুত রাখা হয়েছে। এছাড়া ভ্যাকসিন সংরক্ষণের জন্য ডব্লিউআইসি (ওয়াকিং ইন কুলার) প্রস্তুত করা হচ্ছে। এটি নির্মিত হলে ভ্যাকসিন সংরক্ষণে পর্যাপ্ত স্থান পাওয়া যাবে বলেও জানান সিভিল সার্জন।

নিজস্ব সংবাদদাতা, মাদারীপুর থেকে জানান, প্রথম চালানে ৩ হাজার ৬০০ ভায়েল পৌঁছেছে জেলায়। একটি ভায়েল থেকে ১০ জনকে টিকা দেয়া যাবে। অর্থাৎ ৩ হাজার ৬০০ ভায়েল থেকে ৩৬ হাজার মানুষকে এ টিকা দেয়া যাবে বলে জানিয়েছে সিভিল সার্জন কার্যালয়ের চিকিৎসারা। জেলার সদর হাসপাতাল ছাড়াও চারটি উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে টিকাকেন্দ্র স্থাপন করা হয়েছে। উপজেলা পর্যায় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সগুলোয় টিকা সংরক্ষণের জন্য ফ্রিজ প্রস্তুত রাখা হয়েছে। প্রথমে টিকাগুলো সবই সদর হাসপাতালের ইপিআই ভবন থেকে সরবারহ করা হবে। বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালের আঞ্চলিক ব্যবস্থাপক জহিরুল হক মণ্ডলের কাছ থেকে টিকার এ্যাম্পুলভর্তি কার্টন বুঝে নেন সিভিল সার্জন কার্যালয়ে কর্মরত চিকিৎসক এস এম খলিলুজ্জামান। এ সময় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার চাইলাউ মারমা, ওষুধ প্রশাসন মাদারীপুর কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মহেশ^র মণ্ডলসহ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। জেলা প্রশাসক ড. রহিমা খাতুন জানান, ‘জেলা ও উপজেলা সরকারী-বেসরকারী স্বাস্থ্যকর্মীরা যারা মাঠে থেকে জনগণের সেবা দিয়েছে ও আগামীতে দিবে তারাই আগে টিকা পাবে। একই সঙ্গে বীর মুক্তিযোদ্ধা, সরকারী-বেসরকারী স্বাস্থ্য প্রতিষ্ঠানের চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীরা, গণমাধ্যমকর্মীরা, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী, জেলা ও উপজেলার প্রশাসনের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা টিকা পাবে।

২৪ লাখ করোনা টিকা পাঠানো হয়েছে ॥ নিজস্ব সংবাদদাতা, টঙ্গী থেকে জানান, টঙ্গীতে বেক্সিমকো ওষুধ কারখানায় রাখা করোনা ভাইরাসের বাকি ২৩ লাখ ৯৬ হাজার করোনা টিকা দ্বিতীয় ধাপে শনিবার থেকে বিভিন্ন জেলায় পাঠানো শুরু করেছে বেক্সিমকো কর্তৃপক্ষ ও স্থানীয় প্রশাসন। এর আগে বৃহস্পতিবার পাঠানো হয় ২৬ লাখ চার হাজার টিকা। এ নিয়ে দেশের ৬১টি জেলায় ৫০ লাখ করোনাভাইরাসের টিকা পাঠানো হচ্ছে।

টঙ্গী পশ্চিম থানার ওসি শাহ্ আলম জনকণ্ঠকে জানান, শনিবার সন্ধ্যা থেকে কড়া নিরাপত্তায় টিকা পাঠানোর কার্যক্রম শুরু করেছে বেক্সিমকো ওষুধ কারখানা কর্তৃপক্ষ ও স্থানীয় প্রশাসন। ভারত থেকে আসা ৫০ লাখ টিকা এখানে রক্ষিত ছিল। টঙ্গীর বেক্সিমকো কারখানা থেকে শনিবার সন্ধ্যা থেকে রবিবার ভোর রাত পর্যন্ত ফ্রিজার ভ্যানে করে টিকাগুলো পাঠানোর হয়।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের টঙ্গী জোনের উপ-পুলিশ কমিশনার ইলতুৎমিশ জনকণ্ঠকে জানান, ২৫টি জেলা প্রশাসনের কাছে টিকার ডোজ পৌঁছানোর খবর আগেই অবহিত করা হয়েছে। টিকা বহনকারী গাড়িগুলো পুলিশ স্কট করে পৌঁছে দেবে।

টঙ্গী চেরাগআলী বেক্সিমকো ওষুধ কারখানা থেকে করোনা টিকার দ্বিতীয় চালান পাঠানোর সময় অন্যদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন আহমেদ ইমরানুল হক, মাহবুব আলম, কাজী নাদিম আহমেদ প্রমুখ। দ্বিতীয় ধাপে যে ২৫টি জেলায় করোনার টিকা পাঠানো হচ্ছে সেগুলো হলো, গাইবান্ধা, রংপুর, লালমনিরহাট, কুড়িগ্রাম, দিনাজপুর, নীলফামারী, ঠাকুরগাঁও, পঞ্চগড়, বান্দরবান, কক্সবাজার, চট্টগ্রাম, রাঙ্গামাটি, খাগড়াছড়ি, যশোর, সাতক্ষীরা, খুলনা, বাগেরহাট, পিরোজপুর, কুমিল্লা, ফেনী, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, ও চাঁদপুর। রবিবার জেলাগুলোর সিভিল সার্জনগণ করোনার টিকা নিজ দায়িত্বে প্রশাসনের সহায়তায় গ্রহণ করবেন।

জানা গেছে, ঢাকা-গাজীপুর-নারায়ণগঞ্জের তিন জেলাবাসীর জন্য রয়েছে ভারত থেকে আসা উপহার সামগ্রীর ২০ লাখ ডোজ টিকা। আগামী ৭ ফেব্রুয়ারি থেকে দেশব্যাপী শুরু হবে করোনা ভাইরাসের টিকাদান কর্মসূচী।

দিনাজপুরে ৯৬ হাজার করোনার ভ্যাকসিন আসছে আজ ॥ স্টাফ রিপোর্টার জানান, দিনাজপুরের জন্য বরাদ্দকৃত ৯৬ হাজার ভ্যাকসিন আসছে আজ রবিবার। এসব ভ্যাকসিন সংরক্ষণের জন্য সকল প্রকার প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। শুধু সংরক্ষণ নয়, আগামী ৭ ফেব্রুয়ারি দিনাজপুরে সম্মুখযোদ্ধাদের প্রথম ধাপে করোনা ভ্যাকসিন প্রদানের জন্যও প্রস্তত স্বাস্থ্য বিভাগ।

দিনাজপুরের সিভিল সার্জন ও জেলা করোনা গ্রতিরোধ কমিটির সদস্য সচিব ডাঃ আব্দুল কুদ্দুছ জানান, রবিবার সকাল সাতটার দিকে ভ্যাকসিন দিনাজপুরে এসে পৌঁছাবে। এরপর টিকা রাখার স্থানে এসব ভ্যাকসিন সংরক্ষণ করা হবে। আগামী ৭ ফেব্রুয়ারি থেকে সম্মুখযোদ্ধাদের দিয়ে দিনাজপুরে প্রথম ভ্যাকসিন প্রদানের কার্যক্রম শুরু করা হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘ভ্যাকসিন প্রদানের জন্য ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট দিনাজপুর জেনারেল হাসপাতালে আটটি, দিনাজপুরের এম আব্দুর রহিম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চারটি ও ১৩টি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে দুটি করে ২৬টি টিম গঠন করা হয়েছে। প্রতিটি টিমে দু’জন করে টিকাদান কর্মী ও চার জন করে স্বেচ্ছাসেবক রয়েছেন। ভ্যাকসিন প্রদানের সঙ্গে যারা জড়িত থাকবেন সেসব চিকিৎসক, টিকাদান কর্মী ও স্বেচ্ছাসেবকদের প্রশিক্ষণও দেয়া হচ্ছে। এই ভ্যাকসিন গ্রহণের জন্য অনলাইনে নিবন্ধন করতে হবে। যারা নিবন্ধিত হবেন তাদের মোবাইল ফোনে মেসেজের মাধ্যমে টিকা প্রদানের সময় ও স্থান জানিয়ে দেয়া হবে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর
Design and Developed by DONET IT
SheraWeb.Com_2580