বুধবার, ২০ জানুয়ারী ২০২১, ০৬:৩৬ পূর্বাহ্ন

এক মাসে ৫০ শতাংশ দর বেড়েছে বা কমেছে, সেসব কোম্পানির বিরুদ্ধে তদন্তের উদ্যোগ

অনলাইন ডেক্স :
  • প্রকাশিত সময় : বুধবার, ১৩ জানুয়ারী, ২০২১
  • ১৯ পাঠক পড়েছে

শেয়ারবাজারে এক মাসে যেসব কোম্পানির শেয়ারের দাম ৫০ শতাংশ বেড়েছে বা কমেছে, সেসব কোম্পানির বিরুদ্ধে তদন্তের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) দেশের দুই স্টক এক্সচেঞ্জ কর্তৃপক্ষকে তদন্তের এ নির্দেশ দিয়েছে। বিএসইসির উপ-পরিচালক মোহাম্মদ শামসুর রহমান স্বাক্ষরিত এ-সংক্রান্ত আদেশ মঙ্গলবার স্টক এক্সচেঞ্জ দুটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) ও প্রধান নিয়ন্ত্রক কর্মকর্তার (সিআরও) কাছে পাঠানো হয়েছে।

বাজার বিশ্লেষণে দেখা গেছে, তালিকাভুক্তির পর থেকে এক মাসে রবির শেয়ারের দাম বেড়েছে ৫৩২ শতাংশ। এ ছাড়া বেক্সিমকো লিমিটেডের ৩১ টাকার শেয়ারের দাম এক মাসে আড়াই গুণ বা ১৫৫ শতাংশ বেড়ে হয়েছে ৮০ টাকা। আর আর্থিক খাতের প্রতিষ্ঠান লঙ্কাবাংলার ২৩ টাকার শেয়ারের দাম এক মাসের ব্যবধানে ৯২ শতাংশ বেড়ে হয়েছে ৪৪ টাকা।

সাম্প্রতিক সময়ে শেয়ারবাজারের টানা উত্থানে অনেক কোম্পানির শেয়ারের দাম বেড়ে দ্বিগুণ-তিন গুণ হয়ে গেছে। নতুন তালিকাভুক্ত হওয়ার পর থেকে প্রতিদিনই সর্বোচ্চ মূল্যবৃদ্ধির রেকর্ড করেছে রবি আজিয়াটা। তাতে ১৫ দিনেই কোম্পানিটির ১০ টাকা অভিহিত মূল্যের প্রাথমিক গণপ্রস্তাব বা আইপিও শেয়ারের দাম সোয়া ছয় গুণ বেড়ে হয়েছে ৬৩ টাকা। এক মাসে রবির শেয়ারের দাম বেড়েছে ৫৩২ শতাংশ। এ ছাড়া বেক্সিমকো লিমিটেডের ৩১ টাকার শেয়ারের দাম এক মাসে আড়াই গুণ বা ১৫৫ শতাংশ বেড়ে হয়েছে ৮০ টাকা। আর আর্থিক খাতের প্রতিষ্ঠান লঙ্কাবাংলার ২৩ টাকার শেয়ারের দাম এক মাসের ব্যবধানে ৯২ শতাংশ বেড়ে হয়েছে ৪৪ টাকা। এ রকম আরও অনেক কোম্পানি রয়েছে, যেগুলোর শেয়ারের দাম এক মাসে ৫০ শতাংশ থেকে শুরু করে প্রায় সাড়ে ৫০০ শতাংশ পর্যন্ত বেড়েছে।

এসব কোম্পানির এ রকম অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধির পেছনে কোনো কারসাজি রয়েছে কি না, তা খতিয়ে দেখতেই তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তবে বিএসইসির নির্দেশনায় সুনির্দিষ্টভাবে কোনো কোম্পানির বিরুদ্ধে তদন্তের কথা বলা হয়নি।

গত ৩০ কার্যদিবসের মধ্যে যেসব কোম্পানির শেয়ারের দাম ৫০ শতাংশ বেড়েছে বা কমেছে, এর পেছনে কোনো কারসাজি রয়েছে কি না, তা খতিয়ে দেখতে বলেছে বিএসইসি। গত এক মাসে যেসব কোম্পানির গড় লেনদেনের পরিমাণ আগের ছয় মাসের গড় লেনদেনের চেয়ে পাঁচগুণের বেশি বেড়েছে, তারও কারণ খতিয়ে দেখার নির্দেশ দিয়েছে বিএসইসি। এই ছাড়া তালিকাভুক্ত যেসব কোম্পানির বার্ষিক বা প্রান্তিক শেয়ার প্রতি আয় বা ইপিএস আগের বছরের একই সময়ের চেয়ে ৫০ শতাংশের বেশি তারতম্য ঘটেছে, তার পেছনের কারণও খতিয়ে দেখার কথা বলেছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা।

এর বাইরে গত এক মাসে যেসব কোম্পানির গড় লেনদেনের পরিমাণ আগের ছয় মাসের গড় লেনদেনের চেয়ে পাঁচ গুণের বেশি বেড়েছে, তারও কারণ খতিয়ে দেখার নির্দেশ দিয়েছে বিএসইসি। পাশাপাশি মূল্য সংবেদনশীল তথ্য বা পিএসআই প্রকাশের আগের ১০ কার্যদিবসে যেসব কোম্পানির দাম ও লেনদেন ৩০ শতাংশের কম-বেশি হয়েছে, সেসব কোম্পানির বিষয়েও তদন্ত করবে স্টক এক্সচেঞ্জ কর্তৃপক্ষ। ৪৫ কার্যদিবসের মধ্যে তদন্ত শেষ করে নিয়ন্ত্রক সংস্থার কাছে প্রতিবেদন জমা দেওয়ার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে চিঠিতে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর
Design and Developed by DONET IT
SheraWeb.Com_2580