বৃহস্পতিবার, ২১ জানুয়ারী ২০২১, ০৪:৪৪ অপরাহ্ন

করোনার দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলার তেমন প্রস্তুতি নেই

অনলাইন ডেক্স :
  • প্রকাশিত সময় : শুক্রবার, ২৩ অক্টোবর, ২০২০
  • ১ পাঠক পড়েছে

শীতের সময় করোনার দ্বিতীয় ঢেউ আসার পূর্বাভাস থাকলেও মোকাবেলার তেমন কোন প্রস্তুতি নেই। উপরন্তু করোনা প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণ কার্যক্রমে স্থবিরতাই লক্ষ্য করা যাচ্ছে। কোথাও স্বাস্থ্যবিধির বালাই নেই। প্রশাসনের পক্ষ থেকে এ নিয়ে মাথাব্যথাও নেই। শীতে দ্বিতীয় ঢেউ এলে পরিস্থিতি মারাত্মক হতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা।

দেশের করোনা পরিস্থিতি কোন দিকে যাচ্ছে তা নিয়ে সুনির্দিষ্ট দিকনির্দেশনা নেই। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, দেশে করোনা সংক্রমণের গতিবিধি ও মৃত্যুর হারে অস্বাভাবিকতা লক্ষ্য করা যাচ্ছে। দীর্ঘদিন ধরে একই ধারায় দৈনিক রোগী শনাক্ত ও মৃতের সংখ্যা রেকর্ড হচ্ছে। বিশ্বের অন্য কোন দেশে এমনটি দেখা যায় না। করোনায় জর্জরিত বিশ্বের ওই সব দেশে নতুন শনাক্তকৃত রোগী ও মৃতের সংখ্যার পরিসংখ্যানে প্রতিদিনই বেশ পার্থক্য লক্ষ্য করা যায়। কাগজে কলমে বাংলাদেশ এখনও করোনা প্রবল ঝুঁকিতে রয়েছে। মোকাবেলার নির্দেশনাসমূহ দৃশ্যমান নয়। নিজেদের স্বাস্থ্যসুরক্ষা নিজেদেরই করে নিতে হচ্ছে। স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক জনকণ্ঠকে বলেন, শীতে বিভিন্ন দেশে করোনার সংক্রমণে দ্বিতীয় ঢেউয়ের আশঙ্কা করা হচ্ছে। বাংলাদেশেও ফের সংক্রমণ বাড়তে পারে। তাই শীত মৌসুমে অনুষ্ঠিত সকল অনুষ্ঠান সীমিত আকারে করতে হবে। আমরা যেখানেই থাকি স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলায় প্রস্তুত রয়েছে বাংলাদেশ। সঠিক প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণ কার্যক্রমের কারণে করোনায় জর্জরিত বিশ্বের অন্য সব দেশের তুলনায় বাংলাদেশ ভাল অবস্থানে রয়েছে বলে জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, মাঝে টেস্ট কমে গিয়েছিল। গত সপ্তাহে টেস্ট বেড়েছে, সেই অনুসারে রোগী বেড়েছে। এখনও শুধু উপসর্গ থাকা রোগীরাই পরীক্ষা করাতে আসছেন। উপসর্গহীন ব্যক্তিদেরও যদি পরীক্ষা করা যায়, তাহলে রোগীর সংখ্যা বাড়বে।

করোনা আবার বাড়তে পারে বলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজে বারবার সতর্ক করে বলেছেন, ‘এখনও করোনাভাইরাসের প্রভাব আছে। আশঙ্কা করা হচ্ছে আরেকবার হয়তো প্রাদুর্ভাব দেখা দিতে পারে। কারণ ইউরোপসহ বিভিন্ন দেশে আবার নতুন করে তা দেখা দিচ্ছে। আমরা এখন পর্যন্ত ভাল থাকলেও এটি বাড়তে পারে। এজন্য সকলকে সতর্ক থাকতে হবে। বিশেষ করে সকলকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। ভিড় বা বেশি মানুষের কাছে গেলে অবশ্যই মাস্ক পরতে হবে’। এ আশঙ্কা সামনে রেখে পরিস্থিতি মোকাবেলার জন্য স্বাস্থ্য, শিক্ষা, প্রাথমিক ও গণশিক্ষাসহ ২২টি মন্ত্রণালয়কে আগাম প্রস্তুতির নির্দেশ দিয়েছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।

কোভিড-১৯ বিষয়ক জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটির সদস্য ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ডাঃ নজরুল ইসলাম বলেন, পরীক্ষা বাড়লে রোগী আরও বাড়বে এটা শুরু থেকেই বলেছি। মাঝে মানুষ পরীক্ষা করাতে আসেনি। গত সপ্তাহে টেস্ট বেড়েছে। রোগীও বেড়েছে। টেস্টের সংখ্যা বাড়াতে হবে।

জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডাঃ আবু জামিল ফয়সাল বলেন, শীতে করোনার প্রাদুর্ভাব বাড়বে বলে আগেই আমরা আশঙ্কার কথা জানিয়েছিলাম। উত্তরবঙ্গে বেশ ঠা-া পড়েছে। শীতের সময় নিউমোনিয়া, ঠাণ্ডা, কাশি, জ্বর এগুলো হয়। এবার যোগ হয়েছে করোনা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর
Design and Developed by DONET IT
SheraWeb.Com_2580