রবিবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২১, ০৮:৪১ অপরাহ্ন

দ্রুতগামী রেল চলাচলের ব্যালান্স লেস ট্র্যাক্ট চলবে পদ্মা সেতুতে।

অনলাইন ডেক্স :
  • প্রকাশিত সময় : শনিবার, ১২ ডিসেম্বর, ২০২০
  • ১ পাঠক পড়েছে

দ্রুতগামী রেল চলাচলের ব্যালান্স লেস ট্র্যাক্ট চলবে পদ্মা সেতুতে। এ লক্ষ্যে, দ্রুতগতিতে এগিয়ে চলছে, পদ্মা রেল লিংক প্রকল্পের নির্মাণযজ্ঞ। এ পর্যন্ত প্রকল্পের বাস্তব অগ্রগতি ৫৮ শতাংশ। যানবাহন চলাচলের শুরুর দিন থেকে চলবে রেলও। নির্মাণ কাজের বর্তমান অগ্রগতিতে সন্তোষ জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা। রিপোর্টে দ্বি-তল পদ্মা সেতুর স্প্যান বসানো শেষ। রেল সংযোগ স্থাপনে মাওয়া-জাজিরা ও ভাঙ্গা এই অংশে ৪১ কিলোমিটার রেলপথ নির্মাণে দেয়া হচ্ছে, সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার।প্রথম স্প্যান বসানোর দিন থেকেই চলছে স্ল্যাাব বসানোর কাজ। হিসেবের খাতায়, মূল সেতুর রেল চলাচল অংশে এরইমধ্যে বসে গেছে, ষাটভাগ স্ল্যাব। দম ফেলারও সময় নেই, নির্মাণ সংশ্লিষ্টদের। স্ল্যাব বসানোর পাশাপাশি চলছে ঢালাইয়ের কাজও। মূল সেতুর বাইরে আছে, পদ্মা রেল লিংক প্রকল্পের বিশাল কর্মযজ্ঞ। মাওয়া অংশে আড়াই কিলোমিটার এবং জাজিরা অংশে চার কিলোমিটার ভায়াডাক্ট নির্মাণ ইতোমধ্যেই শেষ হয়েছে। প্রকল্পে আছে, ১২টি মেজর ব্রিজ, ৬৭টি আন্ডারপাস, কালভাট, আর্থ এমবেঙ্কমেন্ট। প্রকল্প সংশ্লিষ্টরা বলছেন, জটিল কাজগুলো এরিমধ্যে শেষ হয়েছে। বর্তমানে প্রকল্পের বাস্তব অগ্রগতি ৬৭ ভাগ।মুল সেতুর কাজ শেষ করার পর, দুই-তিন মাস পর্যবেক্ষণ করে বসানো হবে রেলওয়ে ট্যাক্ট। মাওয়া, জাজিরা, শিবচর, ভাঙ্গা রেলজংশন এবং পুরাতন স্টেশন আধুনিকায়ন-সহ মোট পাঁচটি স্টেশন নির্মাণ হবে এই প্রকল্পে। ভাঙ্গা জংশনে ছয়টি রুটের ট্রেন চলাচল তো থাকছেই, ভবিষ্যতে আরো চারটি রুট যুক্ত করার অবকাঠামোও থাকবে। ঢাকা থেকে পদ্মা সেতুর উপর দিয়ে ভাঙ্গা পর্যন্ত প্রাথমিকভাবে এবং পরবর্তীতে এটি নড়াইল হয়ে ১শ ৭২ কিলোমিটার সিঙ্গেল লাইন ব্রডগেজ রেলপথ প্রকল্পের ব্যয় ৩৪ হাজার ৯ শ ৯০ কোটি টাকা। এর মধ্যে ১০ হাজার ২ শ ৪০ কোটি টাকা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর
Design and Developed by DONET IT
SheraWeb.Com_2580