রবিবার, ১৭ জানুয়ারী ২০২১, ১১:৫৪ অপরাহ্ন

ভারত যেদিন ভ্যাকসিন পাবে, আমরাও সেদিন পাব ॥ পররাষ্ট্রমন্ত্রী

অনলাইন ডেক্স :
  • প্রকাশিত সময় : মঙ্গলবার, ১২ জানুয়ারী, ২০২১
  • ২০ পাঠক পড়েছে

মুজিববর্ষ উপলক্ষে রাঙ্গামাটিতে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড আয়োজিত বঙ্গবন্ধু এ্যাডভেঞ্চার উৎসবের উদ্বোধন করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন। তিনি সাংবাদিকদের সঙ্গে রোহিঙ্গা সঙ্কট, তাদের ভাসানচরে স্থানান্তর প্রসঙ্গ এবং করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন নিয়ে কথা বলেন। খবর স্টাফ রিপোর্টার ও নিজস্ব সংবাদদাতাদের।

সম্প্রতি করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন বাংলাদেশ পাবে কি-না তা নিয়ে ধোঁয়াশা দেখা দেয়। এ বিষয়ে সাংবাদিকরা পররাষ্ট্রমন্ত্রীর মন্তব্য জানতে চাইলে সোমবার তিনি বলেন, আমরা ভারতের ওপর বিশ্বাস রাখতে চাই। তারা যেদিন ভ্যাকসিন পাবে, আমরাও সেদিন ভ্যাকসিন পাব।

পার্বত্যাঞ্চলকে বিশে^র কাছে তুলে ধরতে পারলে পর্যটক বাড়বে- মোমেন ॥ এদিকে রাঙ্গামাটি থেকে নিজস্ব সংবাদদাতা জানান, পরাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন এমপি বলেছেন, দেশের প্রায় এক-দশমাংশজুড়ে নয়নাভিরাম প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের লীলাভূমি পার্বত্য চট্টগ্রাম। এ অঞ্চলে বসবাসরত বিভিন্ন জাতিসত্তার মানুষের জীবনবৈচিত্র্য, প্রকৃতি, ইতিহাস, জীবনযাপন ও ঐতিহ্য আরও বৃদ্ধি পেয়েছে। এ অঞ্চলের অনিন্দ্য সুন্দর প্রকৃতি বিশে^র কাছে তুলে ধরতে পারলে পর্যটক বাড়বে। সোমবার সকালে রাঙ্গামাটি চিং হ্লা মং চৌধুরী মারি স্টেডিয়ামে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের উদ্যোগে আয়োজিত বঙ্গবন্ধু এ্যাডভেঞ্চার উৎসবের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। এ সময় পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান ও বাংলাদেশ এ্যাডভেঞ্চার ফাউন্ডেশনের প্রেসিডেন্ট নব বিক্রম কিশোর ত্রিপুরা, এনডিসির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন- রাঙ্গামাটি আসনের সংসদ সদস্য ও খাদ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি দীপংকর তালুকদার, রাঙ্গামাটি রিজিয়ন কমান্ডার ও ৩০৫ পদাতিক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোঃ ইফতেকুর রহমান-পিএসসি, রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক এ কে এম মামুনুর রশিদ, পুলিশ সুপার মোঃ মীর মোদ্দাছ্ছের হোসেন। স্বাগত বক্তব্য রাখেন ভাইস চেয়ারম্যান নূরুল আলম নিজামী। পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, যুবকরা হলেন সোনার বাংলা গড়ার হাতিয়ার। সোনার বাংলা গড়তে সোনার মানুষ হতে হবে। এতে প্রবল ইচ্ছাশক্তি থাকতে হবে। প্রবল ইচ্ছাশক্তি থাকলে যুবকদের উদ্দেশ্য সাধিত হবে। চলার পথে অনেক বাধাবিপত্তি আসতে পারে তা ধৈর্যের সঙ্গে অতিক্রম করতে হবে। স্বপ্ন যদি ছোট থাকে তাহলে অর্জনটিও ছোট হবে আর স্বপ্ন যদি বড় হয় অর্জনটিও বড় হবে। এ্যাডভেঞ্চার করে যে অভিজ্ঞতা অর্জন হবে তা সারাবিশে^ তুলে ধরতে হবে। অভিজ্ঞতা থাকলে তাকে কেউ আটকিয়ে রাখতে পারবে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর
Design and Developed by DONET IT
SheraWeb.Com_2580