বৃহস্পতিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০৮:০৭ অপরাহ্ন

মৌলভীবাজারে চিকিৎসকের অবহেলায় অন্তঃসত্ত্বা নারীর মৃত্যুর অভিযোগ

অনলাইন ডেক্স :
  • প্রকাশিত সময় : বৃহস্পতিবার, ১ অক্টোবর, ২০২০
  • ৮ পাঠক পড়েছে

মৌলভীবাজারের বদরুন্নেছা প্রাইভেট হাসপাতালে ডাক্তারের অবহেলায় সাড়ে সাত মাসের অন্তঃসত্ত্বা লিলি বেগমের মৃত্যুর অভিযোগ পাওয়া গেছে। বুধবার রাত ৯ টায় হাসপাতালে এ ঘটনাটি ঘটে। লিলি বেগম সদর উপজেলার চাঁদনীঘাট ইউনিয়নের বলিয়ারবাগ গ্রামের মধ্যপ্রাচ্য প্রবাসী আহাদ মিয়ার স্ত্রী।

জানা যায়,গত বুধবার রাতে সাড়ে সাত মাসের অন্তঃসত্ত্বা লিলি বেগম চিকিৎসা নিতে আসেন বদরুন্নেসা প্রাইভেট হাসপাতালে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ চিকিৎসা সেবার নামে লিলি বেগমের পরিবারকে বলেন গর্ভবতীকে সিজার না করালে তাকে বাঁচানো যাবেনা তখন লিলির পরিবারকে বাধ্য করা হয় সিজার করাতে। একপর্যায়ে লিলিকে সিজার করার কথা বলে নিয়ে যাওয়া হয় অপারেশন থিয়েটারে এর কিছুক্ষণ পর জানানো হয় লিলি মারা গেছেন এরপর থেকে ডাক্তার,নার্স, আয়া পর্যন্ত সবাই পালিয়ে যান।

পরিবার সহ স্থানীয়দের অভিযোগ বদরুন্নেসা প্রাইভেট হাসপাতালে ভর্তির পর থেকে কোন চিকিৎসা না দেয়ায় রাত আনুমানিক সাড়ে ১০ ঘটিকায় তার মৃত্যু হয়। তারা আরো বলেন,আমরা হাসপাতালে নিয়ে এসেছি পরীক্ষা করানোর জন্য অথচ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানান গর্ভবর্তী মহিলার সিজার করতে হবে তা না হলে রুগিকে বাঁচানো যাবেনা। ফলে সিজার করতে নিয়ে যান এর কিছুক্ষন পর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানান গর্ভবতী নারী মারা গেছেন তখন পরিস্থিতির ঘোলাটে হবে ভেবে তাংক্ষনিক ডাক্তার,নার্সসহ স্টাফ কর্মচারী সবাই প্রায় ২ঘন্টা গা ঢাকা দেন। রোগীর অকাল মৃত্যুর জন্য দায়ী করা তীর সরাসরি গিয়ে পড়েছে বদরুন্নেসার ডাক্তার ও সংশ্লিষ্টদের উপর।

স্থানীয় বাসিন্দাসহ বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষ ঘটনাস্থলে এগিয়ে আসলে দায়িত্বরত ডাক্তার, নার্স, আয়াসহ অন্যন্যেদের দেখতে না পেয়ে সবাই হতাশ হয়ে যান।

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ পালাবে কেন,কারণ কি ও বাচ্চাকে বাঁচানোরও কি দায়ভার ছিলনা ডাক্তার ও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের? প্রথমত সাড়ে সাত মাসের গর্ভবতী মহিলাকে চেকআপের জন্য বদরুন্নেছা প্রা: হাসপাতালে নেয়া হয়েছে তাহলে সিজার কেন? আর সিজার করলে তো অপারেশন রুমে নিয়ে যাওয়ার কথা কিন্তুু অন্য রুমে কেন? তাছাড়া গর্ভবতীর মৃত্যুর সাথে সাথে বাচ্চার জন্য কি করলেন ডাক্তার? এমন প্রশ্নে যারা উপস্থিত হয়েছেন তাদের মাঝে নানা গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়ে।

মৃত্যুর ঘটনাকে কেন্দ্র করে একপর্যায়ে চারিদিক থেকে লোকজন ছুটে আসলে হৈ হুল্লোর ও চিৎকার শুরু হয় এবং বদরুন্নেছা হাসপাতালকে অবরুদ্ধ করে রাখেন। খবর পেয়ে মৌলভীবাজার মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আসে এবং আইনগত সহায়তার আশ্বাস দেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর
Design and Developed by DONET IT
SheraWeb.Com_2580